Ticker

6/recent/ticker-posts

ঘরোয়া ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি রান করা ক্রিকেটার জাতীয় দলে কখনোই ডাক পাননি -Cricfancy.com

 

Sports news

ঘরোয়া ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি রান করেও দেখা হয়নি জাতীয় দলের মুখ।

Cricfancy Desk:


ঘরোয়া লিগে সবচেয়ে বেশি রান করা ক্রিকেটারদের মধ্যে একজন হচ্ছেন তুষার ইমরান।কিন্তু কখনো জায়গা হয়নু জাতীয় দলে। 

এমনকি ৩০ জনের মধ্যেও কখনো ডাক পরেনি এই ক্রিকেটারের।

তাই তার সাথে সাক্ষাৎ নেওয়ার সময় ক্রিকফেঞ্চি কে জানায়ঃ

নান্নু ভাইয়ের ক্যারিয়ারের রান

আমি এক সিজনেই করেছি : তুষার

জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুকে

নিয়ে অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন

দেশের প্রখ্যাত ব্যাটসম্যান তুষার ইমরান। নিয়মিত ভালো

পারফর্ম করা সত্ত্বেও জাতীয় দলের জন্য তাকে তাকে

বিবেচনা করা হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন ঘরোয়া

ক্রিকেটের এই নিয়মিত পারফর্মার।

বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে দীর্ঘদিন ধরে খেলছেন

তুষার। একসময় খেলেছেন জাতীয় দলেও। তবে ৪১টি

ওয়ানডে ও ৫টি টেস্টে নিজেকে প্রমাণ করতে ব্যর্থ

হওয়ায় বাদ পড়েন। এরপর ঘরোয়া ক্রিকেটে বসেছেন

রাজার আসনে, হয়েছেন প্রথম শ্রেণির সর্বোচ্চ রান

সংগ্রাহক। দেশের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে একমাত্র

ব্যাটসম্যান তিনি, যার আছে দশ হাজার রান। তবুও জাতীয় দলে

আর সুযোগ হয়নি।

তুষারের দাবি, ভালো পারফর্ম করা সত্ত্বেও তাকে নির্বাচকরা

ইচ্ছা করেই দলে নেননি। এক্ষেত্রে তিনি চাপা অভিমান

জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচক ও সাবেক অধিনায়ক মিনহাজুল

আবেদিন নান্নুকে নিয়ে, যিনি ২০১১ সাল থেকে জাতীয়

দলের নির্বাচক প্যানেলে রয়েছেন।

তুষার মনে করেন, সৌম্য সরকারের মত ক্রিকেটারকে জাতীয়

দলে অন্তর্ভুক্ত করার ক্ষেত্রে নির্বাচকরা পারফরম্যান্সকে

মানদণ্ড হিসেবে দেখলেও তুষারের ক্ষেত্রে তা বিবেচ্য

ছিল না। বিডিক্রিকটাইম কে তিনি বলেন, ‘আমি আর সৌম্য একই

উইকেটে খেলেছি, রান করেছি। ও রানে ছিল না। রানে

ফেরার পর প্রধান নির্বাচককে জিজ্ঞেস করা হল, সৌম্য

তো রানে ফিরেছে… নির্বাচকমণ্ডলীও বললেন, হ্যাঁ

ও তো রানে ফিরেছে। আমার কথা যখনই আসে তখন

বলা হয়- আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটের মান নিয়ে প্রশ্ন

তোলা হল। বলা হল ঘরোয়া ক্রিকেটের উইকেট আপ টু

দ্যা মার্ক না।’

তুষারের দাবি, অন্য ক্রিকেটারদের দলে অন্তর্ভুক্ত করতে

গিয়ে বারবার তাকে বলির পাঠা হতে হয়েছে। আর এই

অবহেলায় নিদারুণ কষ্ট পেয়েছেন তিনি।

তুষার বলেন, ‘যদি নির্দিষ্টভাবে কোনো একজন

ক্রিকেটারকে ওপরে উঠাতে চান তাহলে… হ্যাঁ উঠান, কিন্তু

একজনের ঘাড়ে পা দিয়ে ওঠানোর তো যুক্তি দেখি না।

তুষার রান করেছে, আমরা বিবেচনা করব- এতটুকু বললেই

তো আমি খুশি থাকতাম। আমাকে অবহেলা করে অন্য

ক্রিকেটারকে তুললেন এটা খারাপ লাগবে।’

তুষার জাতীয় দলের জার্সি গায়ে সর্বশেষ খেলেছেন

২০০৭ সালে। টেস্টে ১০ ও ওয়ানডেতে ৪০ ইনিংস খেলে

তার রান সাকুল্যে ৬৬৩, অর্ধশতক আছে মাত্র দুটি (দুটিই

ওয়ানডেতে)। ঘরোয়া ক্রিকেটে যখন নিজেকে মেলে

ধরেছেন, তখন জাতীয় দলের ডাক না পাওয়া টা যেনো বোর্ডের নির্বোধতাই দেখিয়ে দেয়।


Post a Comment

0 Comments